ওটা তবে মরীচিকা

ওটা তবে মরীচিকা
নয়ন মালিক

একটা যন্ত্রনা , একটা কষ্ট
বুকের পাশটা দিয়ে কেঁদে যায়
বিষন্ন বিষাদময় মলিনতা,
হৃদয়ের ঘাম দিয়ে ঝরে
একটা ছোট্ট দীর্ঘনিঃশ্বাস
নাকি মানুষীর ভালোবাসা ?

খটকা প্রবল হয় বন্যা
বিষাদময় রজনীর স্বাদ
নয়নে পড়ে না পাতা ,
ক্লান্ত চোখে ধূসরতা টেনে
আঘাত এঁকে দেয়
রাত্রির দীর্ঘ নিস্তব্ধতা।

নরম শয্যা পাথরের কাঠিন্যতা
বিদ্ধ করে দেহ
পাশবালিশ এখন জীবন্ত সুখ,
তুলোর তুন্দে একটা মুখের ছাঁচ
শিশু- জননী- গণিকা নয়
সেই মানুষীর মুখ।

সংযমের লাগামে চির
বাহুডোরে বন্দী কামনা
মায়াবী কটাক্ষে হৃদয় বিদ্ধ ,
আঘাতে ক্ষতিগ্রস্ত আত্মাকে টেনে
উৎসুক চোখে জিজ্ঞাসা
তুমি কি আমায় ভালোবাসো ?

সহসা মুখ ঢেকে যায় তুলোর ভিড়ে
পাশ বালিশ এখন নিথর
শয্যা জুড়ে মরুভূমির রেখা,
উত্তপ্ত বালিতে ঝলসে যায় প্রেম
তপ্ত বলিষ্ঠ বুক জুড়ে
ওটা তবে মরীচিকা ?
___&&&___

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top