Oporichito Nilanjana

“অপরিচিত নীলাঞ্জনা”
আষাঢ়ের বৃষ্টিতে সে এসেছিল আমার জীবনে,
রাইয়ের জায়গা নিতে গিয়ে আমি দেখেছিলেম তাকে,
কোনো এক নীলের মাঝে হারিয়েছি নিজেকে,,,,,
জানি না,ঐ ভীড়ের মাঝে আমার দুচোখ খুঁজে চলেছে কাকে?
হঠাৎ আমার আখি স্থির হয়ে দেখতে থাকে মানুষটিকে,
শত চোখের মাঝেও দুচোখ খুঁজে নেয় আমাকে,
মুহুর্তের জন্য মনে হলো আমি ভেসে আছি নীলাকাশে,
আমার মন ও আমি দুটিতে ভিজে গেলাম বৃষ্টির জলে।
কোনো এক অজুহাতে সে চেয়েছিল আমার পরিচয় জানতে,
মনের সংকোচে আমি পারিনি তাকে বলতে,
তার নীলে সে করতে চেয়েছিল আমায় নীলাঞ্জনা,
কিন্তু অজানা চিন্তা আর তেজের গুনে আমি যে অনুপমা।
অযাচিত ঢেউয়ের তোড়ে ভাসিয়ে দিয়েছিলেম তাকে,
আকুল হয়ে দুহাত বাড়িয়ে সে বার বার ডেকেছিল আমাকে,
কল্পনার ভেলা সাজিয়ে ভাসিয়েছিলেম তার উদ্দেশ্যে,
সুখ পাখিরা আমার কষ্ট বয়ে নিয়ে যায় অদুরে।
আমার স্বপ্নের খেলাঘর ভিজে যায় দুর্বোধ্য রহস্যে,
জানি না কেন এমন হয়েছিল সেূিন আমার সাথে!
রৌদ্রতপ্ত খরার মতো খা খা করছিল আমার বুকের ভেতরে,
যেন আমি নিজেকে ভাসিয়েছি কেনো জলহীন সমুদ্রে।
জানি না, কোন অপরাধে তাকে দিয়েছিলেম আমি সাজা,
নিজেকে বাঁচাতে তাই তো আমার একলা থাকা,
প্রথমবার কোনো অনুভূতি দিয়েছিল আমায় সাড়া,
মনের মাঝে উঁকি দেয় সেই নীল রংয়ের আভা।
মনের অজান্তে রয়ে গেল সেই অপরিচিত নাম নীলাঞ্জনা।।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top