Story

বেশ কয়েকদিন যাবত এক অদ্ভুত অনুভূতি হচ্ছে, মনে হচ্ছে আমার আশে পাশে ঘিরে আছে অনেক মানুষ। যাদের আমি দেখতে পাচ্ছি না, বিশেষত আমার বাবা- মা, ভাই – বোনকে যারা দুই মাস আগে এক সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছে। দুর্ঘটনায় আমিও ছিলাম তবে কাকতালীয় ভাবে বেঁচে আছি, কেনো বেঁচে আছি জানা নেই।

ও হ্যা, আমার পরিচয় টা দেওয়া হয় নি। আমি মিলি, মেডিকেল কলেজের শেষ বর্ষের ছাত্রী। পরীক্ষা দেয়া শেষ এবং শীঘ্রই ফলাফল পেয়ে যাব। আমার বাবার খুব ইচ্ছে ছিল আমাকে ডাক্তারি পোশাকে দেখা। ভাগ্যের কি পরিহাস, আজ তারা কেউ নেই। আমিও যদি তাদের সাথে ওই দূর আকাশের সঙ্গী হতে পারতাম।

সন্ধ্যা নেমে আসলো মনে হচ্ছে কারা যেন বাসায় আসলো, কিন্তু আমিতো দরজা ভালো করে লাগিয়েছি। বাসা থেকে তো বের ও হই নি এতদিন। অবাক করা বিষয় হলো আমার অন্য কোনো আত্মীয় আমার তেমন খোঁজ নেয় নি। কয়েকবার ফোন কল আসলেও ধরা হয় নি, তার আগেই কেটে গেছে। অবশ্য মা প্রায়ই বলতো তারা মারা গেলে আমাদের ভাইবোনদের খুব কষ্ট হবে, আমাদের নাকি খোঁজ নেয়ার কেউ নেই। কথাটি মা ভুল বলতেন না।।

যাই দেখে আসি কে এলো?
মা, বাবা, নিলু, তোমরা!!! কি ব্যাপার আমি কি স্বপ্ন দেখেছি? না মতিভ্রম হলে বাসায় থাকতে থাকতে।
ভয় লাগছে না মোটেই কারণ তাদের আগের মতোই স্বাভাবিক লাগছে। তবে একটু মন মরা, কি হয়েছে তাদের? ওপারে কি শান্তিতে নেই তারা?

কি নিয়ে যেন আলোচনা করছে…
বিষয় টা কি জানা দরকার।
ওহ মানুষজন দাওয়াত করার কথা বলছে, কিন্তু তাদের ওখানেও এমন হয় জানা ছিল না। যাই হোক ভালোই লাগছে তাদের সঙ্গ পেয়ে। যদিও তারা আমাকে দেখতে পাচ্ছে না, কিন্তু আমি দেখতে পাচ্ছি কেন???

সকাল হতে না হতেই লোকজনের আনাগোনায় বাড়ি ভরে গেল, বুঝতে পারছি না কি হচ্ছে আমার সাথে, সকলেই এখানে অথচ কেউ আমার খোঁজ নিচ্ছে না। তারা কেন এসেছে? আর কাল কে যে লোকজন দাওয়াতের কথা বলা হচ্ছিল এরা কি তারা, কিন্তু এরা তো সবাই জীবিত।
মা,নিলু কাঁদছে, বাবা গম্ভীর মুখে বসে আছে। মৃত মানুষের চলাচল এমন হয়?
কিছুক্ষণ পর বাবা সকলকে বলতে শুরু করলেন যে আজকে সবাইকে দাওয়াতের কারন মিলু অর্থাৎ আমি!!!
বাবা আমাকে কথা দিয়েছিল আমি ডাক্তারি পাশ করলে ধুমধাম আয়োজন করে সবাইকে খাওয়াবে, আজ সেই দিন।

সকলে খুব আফসোস করছে অকালে মেয়েটা মারা গেলো,

কে, কে মারা গেলো? আমার খুব ভয় লাগছে এখন।
তার মানে কি আমি এই পৃথিবীতে…….

মায়া

(প্রিয়াংকা)

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top